বিশ্বের অদ্ভুত ৫টি রেস্টুরেন্ট যা নিজের চোখে না দেখলে আপনার বিশ্বাসই হবে না

1
218

পেট পূজা করতে বা বন্ধুদের সাথে নিছক আড্ডা দিতে রেস্টুরেন্টে কিন্তু যেতে হয় আমাদের সবাইকেই । আর ভোজনরসিকদের আকৃষ্ট করতে রেস্টুরেন্টগুলোও নিত্য নতুন idea নিয়ে মাঠে নামছে ।
মাইওয়ের এই পর্বে আপনাদের নিয়ে যাব বিশ্বের অদ্ভুত কিছু রেস্টুরেন্টে।

ক্যাফে ইকান ঃ-

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

 Vietnam-এর “Ho Chi Minh” সিটিতে রয়েছে এই অদ্ভুত রেস্টুরেন্টটি।যেখানে ঢুকতে হলে আপনাকে জুতো খুলে নিতে হবে । কারণ, এই রেস্টুরেন্টের মেঝে জলমগ্নতো বটেই, গোটা রেস্টুরেন্ট-এ গিজগিজ করছে ছোটোবড়ো রংবেরঙের মাছ ।

আপনি চাইলে মেঝেতে পা ডুবিয়ে ভোজনপর্ব সেরে নিতে পারবেন, যখন একঝাক মাছ আপনার পায়ের কাছে ঘুরঘুর করতে থাকবে । চাইলে মাছের জন্য খাবার সংগ্রহ করে খাওয়াতে পারবেন এই মাছদেরও । রেস্টুরেন্টের এই অভাবনীয় idea ভোজনরসিকরা লুফে নিয়েছেন সাগ্রহেই। তবে মাছেদের সাথে খাওয়ারই ব্যাবস্থা রাখা হয়েছে এখানে, খেতে বসে মাছ ধরার কোন সুযোগ নেই।

স্ট্রীট ডিনার ঃ-

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

ইতালির পুরাকীর্তি ও ঐতিহ্যের শহর ফেরেরায় রয়েছে ব্যতিক্রমধর্মী একটি স্ট্রীট ডিনারের আয়োজন। রহস্য-রোমাঞ্চপ্রিয় ভোজন রসিকদের জন্য এটা হতে পারে দারুন একটি অভিজ্ঞতা। প্রথমে জনপ্রতি ৬০ ইউর দিয়ে কিনতে হবে প্যাকেজ, কিন্ত ডিনারটি কোথায় হবে তা জানানো হবে না। নির্দিষ্ট দিনে মেসেজ দিয়ে জানানো হবে কোথায় গেলে পাওয়া যাবে অ্যাপারিটি বা ক্ষুধা উদ্রেককারী পানীয়, সেখানে নাচ-গানেরও আয়োজন থাকে।ডিনারের এক ঘন্টার আগে মেসেজ দিয়ে জানানো হয় কোথা থেকে সংগ্রহ করতে হবে খাবার এবং চেয়ার। আর সব শেষ মেসেজটি দিয়ে জানানো হয় টেবিল চেয়ার সমেত ঠিক কোন জায়গায় বসে নৈশ ভোজ উপভোগ করবে সবাই। দৃষ্টিনন্দন পুরাকীর্তির মাঝে খোলা জায়গায় বসে, জমিয়ে ডিনার এবং আড্ডা দুটোই যে উপভোগ্য হয় তাতে সন্দেহ নেই।

আরও পড়তে ক্লিক করুন ঃ- এই মুরগী গুলির ব্যাপারে জানেননা তো আপনি কিছুই জানেন                                                         ভারতে রয়েছে এক রহস্যময় মন্দির যেখানে পুজো হয় বুলেট বাইক                                                     অভিশপ্ত চেয়ার যেখানে বোসলেই মৃত্যু || চেয়ার অব ডেথ

জিরাফ মেনর ঃ-

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

কেনিয়ার নাইরোবিতে বিভিন্ন প্রজাতির রোসচাইল্ড জিরাফের অভয়ারণ্যের পাশে গড়ে উঠেছে জিরাফ ম্যানর নামে এই হোটেলটি। আর এখানকার সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয়টি হচ্ছে প্রাতরাশ, তবে খাবার নয় বিস্মৃত হবেন তখন টেবিলে বসে যখন দেখবেন বিভিন্ন বয়সী বেশ কিছু জিরাফ জানালা দিয়ে মাথা গলিয়ে নিজের খাবারটি দাবি করছে এবং অবলীলায় আপনার প্লেটের খাবার সাবার করে দিচ্ছে।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

অবশ্য এদের খাওয়ানোর জন্য ব্যাগ ভর্তি খাবার সরবরাহ করবে হোটেল কর্তৃপক্ষ। সদর দরজা বা বেডরুমের জানালা দিয়েও খাওয়ানো যাবে এই জিরাফদের, সেই সাথে এই বিপন্ন প্রাণীদের কাছ থেকে দেখা ও জানার সুযোগ তো থাকছেই। ১৯৮৩ সালে যাত্রা শুরু করে ছোট্ট এই হোটেলটি।২০০৯ সাল থেকে হোটেলটি পরিচালনা করছে দা সাফারি কালেকশন গ্রুপ।

আইস রেষ্টুরান্ট ঃ-

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

ফিনল্যান্ডের রোভানিনি শহরে রয়েছে এই অদ্ভুত দৃষ্টিনন্দন বরফের রেস্টুরেন্টটি। মূলত বরফের তৈরি একটি হোটেলের সাথে যুক্ত এই রেস্টুরেন্ট, যেখানে খাবার পরিবেশনের টেবিল বা আকর্ষণীয় ভাস্কর্য সবই তৈরি হয়েছে বরফ কেটে। তবে বরফের তৈরি হলেও এই রেষ্টুরেন্টের তাপমাত্রা হিমাঙ্কের মাত্র কয়েক ডিগ্রী নিচে থাকে, যা বাইরের আবহাওয়ার তুলনায় আরামদায়কি বলা চলে। না না ধরনের স্থানীয় সুস্বাদু খাবারের স্বাদ নেয়ার পাশাপাশি এখানে রয়েছে বরফের তৈরি একটি বার, যেখানে বরফের গ্লাসে পানীয় পরিবেশন করা হয়। ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত চার মাস খোলা থাকে এই রেস্টুরেন্ট এবং হোটেলটি।

কলোনিয়াল ট্রামকার রেস্টুরান্ট ঃ-

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে দেখা পাবেন এই অবাক করা ট্রামকার রেস্টুরেন্ট। ১৯২৭ সালে তৈরি তিনটে ডব্লু ক্লাস ট্রামকে সংস্কার করে তৈরি করা হয়েছে এই বিশেষ রেস্টুরেন্ট সার্ভিস। ক্লারেন্টন ট্রিট জংশন থেকে শুরু করে মেলবোর্ন একজিবিসন অ্যান কনভেনশন সেন্টার পর্যন্ত চলাচল করে এই রেষ্টুরেন্টগুলো। প্রতিদিন একটি মধ্যান্য এবং দুটি নৈশভোজের সুযোগ পাওয়া যায়, তবে সিট পাওয়ার জন্য বুকিং করতে হয় কয়েক সপ্তাহ আগে, ট্রামে রয়েছে রান্নাঘর এবং সব সময় ফ্রেস খাবার সরবরাহ করে একজন সেফ। ট্রামের ভেতরে বিশেষ ভাবে সাজানো বিশ শতকের গোড়ার দিকের, পুরনো পরিবেশে বসে সুস্বাদু খাবার খেতে খেতে উপভোগ করতে পারবেন আধুনি মেলবোর্নের রঙ ঝাল্-মলে দৃশ্য।

আজ এই পর্যন্তই যদি আর্টিকেলটি ভালো লাগে তাহলে শেয়ার করে সবাইকে জানার সুযোগ করে দিন ।

ধন্যবাদ

সুমন্ত …………

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

হাই।। বন্ধুরা... আমি সুমন্ত, পৃথিবী কাঁপানো অসংখ্য রহস্যের উদঘাটন হয়নি আজও। তবে এগুলো নিয়ে আলোচনা-গবেষণা চলছে এখনো। রহস্যময় পৃথিবীতে প্রাকৃতিক বা অ-প্রাকৃতিক রহস্যের সীমা নেই। এরমধ্যে আবার কিছু স্থান বা বিষয় রয়েছে যা অতি-প্রাকৃতিক। এ কারণে এগুলো যুগ যুগ ধরে মানুষের কাছে হাজারো রহস্যে ঘেরা। আধুনিক বিজ্ঞানের উৎকর্ষতাও এ রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। এমনই হাজারো রহস্যের সন্ধান দিতে আমারদের এই ওয়েবসাইটি করা। আশা করি আপনারা সাথেই থাকবেন এবং উৎসাহ দিবেন। Subscribe করে আমাদের সাথে থাকতে ভুলবেন না।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here