ভারতে রয়েছে এক রহস্যময় মন্দির যেখানে পুজো হয় বুলেট বাইক

1
187

ভারত এক অদ্ভুত দেশ যেখানে বিভিন্ন সংস্কৃতি ধর্ম ও ভাষাভাষী মানুষ একসাথে বসবাস করে। আপনি হয়তো ভারতে বিভিন্ন মন্দির দেখে থাকবেন যেখানে বিভিন্ন দেবদেবীকে বিভিন্ন রূপে পূজিত করা হয়। কিন্তু এই ভারতে এমন একটি মন্দির আছে যেখানে দেব দেবী নয় বরং রয়েল এনফিল্ড ৩৫০ সিসির একটি বুলেট বাইক কে পুজো করা হয় ।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

শুনতে অদ্ভুত লাগলেও প্রায় বিগত ২৮ বছর ধরে এইরকমই ঘটনা ঘটে আসছে রাজস্থানের যোধপুরে পালি জেলায়। এই অদ্ভুত মন্দিরটির নাম বুলেট বাবার মন্দির। আজ এই ভিডিওতে আমরা জানবো কি রহস্য লুকিয়ে রয়েছে এই বুলেট গাড়ির পেছনে যার জন্য প্রতিদিন প্রায় হাজারো মানুষ শ্রদ্ধা এবং ভক্তির সাথে এই বাইকটিকে পুজো করে আসছে।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

আরও পড়তে ক্লিক করুন ঃ- সৌরজগতের সবচেয়ে রহস্যময় উপগ্রহ টাইটানের কিছু অজানা তথ্য                                                   রহস্যময় কিছু মূর্তি যারা রাতের বেলা নড়াচড়া করে || অদ্ভুত ঘটনা                                                   এয়ারপোর্ট ধরা পরা কিছু রহস্যময় বস্তু যা গোপনে পাচার করা হচ্ছিলো

ওম বান্না বা বুলেট বাবার মন্দির পালি থেকে ২০ কিলোমিটার এবং যোধপুর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে একটি হাইওয়ের উপর অবস্থিত। এখানে প্রতিদিন প্রায় হাজার মানুষের সমাগম হয় এবং তারা তাদের যাত্রা শুভ হওয়ার জন্য এখানে প্রার্থনা করে। এটি একটি হাইওয়ে হওয়ার জন্য এই জায়গাটি খুবই দুর্ঘটনা প্রবণ, প্রায় প্রতিবছর এখানে ৩০ থেকে ৪০ টি দূর্ঘটনা ঘটে থাকে কিন্তু বুলেট বাবার মন্দির তৈরি হওয়ার পর থেকে আশ্চর্যজনকভাবে এখানে সমস্ত দুর্ঘটনা বন্ধ হয়ে যায়। এই অদ্ভুত মন্দির সৃষ্টি হওয়ার পেছনে কি রহস্য লুকিয়ে রয়েছে তা জানতে আমাদের যেতে হবে ২৮ বছর পেছনে, ২ ডিসেম্বর ১৯৯১, ওম বান্না অর্থাৎ ওম সিং রাঠোর নামে এক ব্যক্তি রয়েল এনফিল্ড 350cc একটি বাইকে চেপে এই রাস্তা দিয়ে পালি থেকে চোওটিলার দিকে যাচ্ছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে রাস্তাতেই তার অ্যাক্সিডেন্ট হয় এবং দুর্ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু ঘটে। সেই সময় এই স্থানে এই ধরনের দুর্ঘটনা গুলি ছিল একটি সাধারন ব্যাপার, কারন এই ধরনের দুর্ঘটনা এই স্থানে এর আগে বহুবার ঘটেছে। দুর্ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে এবং বাইকটিকে উদ্ধার করে পুলিশ স্টেশনে নিয়ে যায়, আর এরপর থেকে ঘটতে শুরু করে অদ্ভুত সব ঘটনা। পরের দিন পুলিশকর্মীরা হতবাক হয়ে যায় যখন তারা এই বাইকটিকে পুলিশ স্টেশনের মধ্যে খুঁজে পায়না, অনেক খোঁজাখুঁজির পর তারা সেই বাইকটিকে আবার দুর্ঘটনাস্থল কাছে খুঁজে পায় এবং সেটিকে পুনরায় পুলিশ স্টেশনে ফিরিয়ে নিয়ে আসে কিন্তু তার পরদিন আবার সেই একই ঘটনা ঘটে এবং সেই বাইকটিকে পুনরায় খুঁজে পাওয়া যায় সেই দুর্ঘটনাস্থলে এরপর পুলিশকর্মীরা হতবাক হয়ে যায় তারা বুঝে উঠতে পারে না কিভাবে এই বাইকটি পুলিশ স্টেশন থেকে দুর্ঘটনাস্থলে চলে আসচ্ছে বারবার। এরপর তারা একটি উপায় বার করে এবং তারা বাইকটি থেকে সব তেল বার করে, বাইকটিকে চেন-তালা দিয়ে বেঁধে রাখে কিন্তু অবাক করা ব্যাপার টি হল পরদিন সকালে অদ্ভুতভাবে আবার বাইটিকে দুর্ঘটনাস্থলে খুঁজে পাওয়া যায়। বারবার বাইকটি এই দুর্ঘটনাস্থলে কিভাবে চলে আসছে তার কোনো ব্যাখ্যা তারা খুঁজে পায় না। অবশেষে তারা এই স্থানেই এই বাইক থেকে ছেড়ে দেয় তারপর থেকে শুরু হয় আরো এক অদ্ভুত ঘটনা, আস্তে আস্তে এই হাইওয়েতে এক্সিডেন্টের ঘটনা গুলি কমতে শুরু করে এবং পরবর্তী দু’মাসে একটিও দুর্ঘটনা ঘটে না।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

এই হাইওয়ের উপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে যাওয়ার সময় বহু ডাইভার দাবি করতে শুরু করে যে তারা এই স্থানটিতে ওম বান্নাকে বহুবার দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেছে এবং সে হাত দেখিয়ে বহু গাড়িকে সতর্ক করে দিচ্ছে গাড়ির গতি আস্তে করার জন্য। এমনকি অনেক ডাইভার এও দাবি করেছে  তারা দ্রুত গতিতে এই স্থান দিয়ে গাড়ি চালিয়ে যাবার সময় অদ্ভুত ভাবে তাদের গাড়ির গতি কমে গেছে। এরপর আস্তে আস্তে এই বাইকটির প্রতি মানুষের আস্থা বাড়তে থাকে এবং তারা বিশ্বাস করতে শুরু করে ওম বান্না এখানে যাত্রী ও ডাইভারদের দুর্ঘটনা ঘটার থেকে রক্ষা করছে। এরপর তারা এইখানে মন্দির বানিয়ে এই গাড়িটিকে পুজো শুরু করে,  এই হাইওয়ের উপর দিয়ে যাওয়া সমস্ত গাড়ি এই মন্দিরে দাঁড়িয়ে তাদের যাত্রা শুভ হওয়ার জন্য প্রার্থনা কর। এমনকি মন্দিরে পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় যদি ব্যাস্ততার কারনে কোন ড্রাইভার এখানে থামতে না পারে, তাহলে তারা বারবার হরেন বাজায়ে এই মন্দিরের উদ্দশ্যে শ্রদ্ধা জানায়।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

আজ এই মন্দিরের সাথে বহু মানুষের আস্থা এবং শ্রদ্ধা জড়িয়ে রয়েছে। প্রতিদিন প্রায় হাজারো মানুষের সমাগম হয় এই বুলেট বাবার মন্দিরে। ঘটনাটি আমার কাছে খুবই অদ্ভুত লেগেছে তাই এই অদ্ভূত ঘটনাটি আপনার সামনে তুলে ধরলাম প্রথমেই বলেছি বিশ্বাস করা বা না করা এটা আপনার সম্পূর্ণ নিজস্ব ব্যাপার।  আশা করি ভিডিওটি আপনাদের ভালো লেগেছে যদি ভালো লাগে শেয়ার করুন এবং অন্যদের জানার সুযোগ করে দিন। আর এই রকমই রহস্যময় ও অদ্ভুত ভিডিও দেখার জন্য আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন পরের ভিডিওতে ভালো থাকবেন ধন্যবাদ ………

সুমন্ত ……………

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here