জানুন বিশ্বকাপে ক্রিকেট অধিনায়কদের বেতন কত

0
172

চলছে ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ আর তাতে মেতে উঠেছে সারা বিশ্ব। কিন্তু আপনি কি জানেন, ক্রিকেটের এই সমস্ত অধিনায়ক যারা তাদের দেশের জন্য অধিনায়কত্ব করছে তাদের সেলারি কত বা কোন দেশের অধিনায়ক সবচেয়ে বেশি ইনকাম করছে। পাকিস্তান বাংলাদেশ বা আফগানিস্তানের ব্যাপারে জানলে আপনি হয়তো কেঁদে ফেলবেন নয়ত অবাক হয়ে যাবেন। এরকমই অনেক কিছু ব্যাপার রয়েছে যা আপনার জানার প্রয়োজন রয়েছে, তো ভিডিওটি পুরো দেখতে থাকুন আমি আপনাকে এই ব্যাপারে অনেক তথ্য দিতে চলেছি।

Cricket-World-Cup
rohoshyosondhane

তো বন্ধুরা সবার প্রথমে আমি আপনাদের জানিয়ে দিতে চাই ক্রিকেট বিশ্বকাপে প্লেয়াররা যত টাকা ইনকাম করেছে, সেটা তারা তাদের ঘরোয়া ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে পাচ্ছে। আইসিসি কোন দেশের প্লেয়ারকে কোন টাকা দেয় না। তাই প্লেয়ারদের ইনকাম কম বা বেশি তা নির্ভর করে সেই প্লেয়ারদের নিজস্ব ক্রিকেট বোর্ডের ওপর।

ইয়ন মরগান
rohoshyosondhane

তো বন্ধুরা আমরা সবার প্রথম আলোচনা করব হস্ট নেশন অর্থাৎ ইংল্যান্ডের ব্যাপারে। ইংল্যান্ডের অধিনায়ক হলেন ইয়ন মরগান, যিনি বিশ্বমানের একজন ব্যাটসম্যান। ইয়ন মরগান তার ক্রিকেট বোর্ড অর্থাৎ ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে বেতন হিসাবে পেয়ে থাকেন ৯ লক্ষ গ্রেট ব্রিটেন পাউন্ড,অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় ৮ কোটি টাকার কাছাকাছি। যা মান্থলিতে কনভার্ট করলে দ্বারায় প্রায় ৭০ লক্ষ টাকার কাছাকাছি। এছারা প্রত্যেক ম্যাচ পিছু প্লেয়ারদের দেয়া হয় ৩ লক্ষ টাকা আর ম্যাচ জিতলে এক্সট্রা কমিশনও দেয়া হয় তাদের।

ফ্যাব ডু প্লেসি
rohoshyosondhane

দ্বিতীয় নম্বরে কথা বলব ফ্যাব ডু প্লেসির ব্যাপারে, তিনি হলেন সাউথ আফ্রিকার অধিনায়ক। ডু প্লেসি তার ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে বেতন পান বছরে প্রায় ৩ কোটি টাকার মত। যা মান্থলিতে কনভার্ট করলে দ্বারায় প্রায় ২৬ লক্ষ টাকার কাছাকাছি। এছাড়া প্রত্যেক ম্যাচ পিছু তিনি পান ১ লক্ষ টাকা।

দিমুথ করুনারত্নে
rohoshyosondhane

এবার কথা বলব শ্রীলংকার ব্যাপারে, শ্রীলংকার ক্যাপ্টেন হল দিমুথ করুনারত্নে। শ্রীলংকার ক্যাপ্টেনের অ্যানুয়াল স্যালারি হলো প্রায় ২ কোটি ১৫ লক্ষ টাকার কাছাকাছি, যা মান্থলিতে কনভার্ট করলে হয় প্রায় ১৮ লক্ষ টাকার মতো। এদের কোনো এক্সট্রা ম্যাচ ফি থাকে না তবে ম্যাচ জিতলে তারা ১০ পার্সেন্ট পর্যন্ত এক্সট্রা ইনকাম পেয়ে থাকে।

আরও পড়তে ক্লিক করুন ঃ- পৃথিবীর সবথেকে বড় ১০ টি জাহাজ ! যা আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না

জেসন হোল্ডার
rohoshyosondhane

এবার কথা বলব ওয়েস্ট ইন্ডিসের ক্যাপ্টেন জেসন হোল্ডারের ব্যাপারে। তিনি বছরে বেতন পান ১ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা যা মান্থলিতে কনভার্ট করলে দ্বারায় ১৬ লক্ষ টাকার মত। এছাড়া প্রত্যেক ম্যাচ পিছু তিনি পান ৫০ হাজার টাকা আর ম্যাচ জিতলে ৫ থেকে ১০ পার্সেন্ট এক্সট্রা ইনকাম তাদের দেওয়া হয়ে থাকে।

অ্যাডাম ফ্রিঞ্চ
rohoshyosondhane

এবার কথা বলব অস্ট্রেলিয়ার ক্যাপ্টেন অ্যাডাম ফ্রিঞ্চের ব্যাপারে যার বাৎসরিক ইনকাম হলো প্রায় ৬ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা যা মান্থলিতে কনভার্ট করলে দ্বারায় প্রায় ৫৭ লাখ টাকার কাছাকাছি। ম্যাচ ফি হিসাবে তারা পেয়ে থাকে ৩ থেকে ৪ লক্ষ টাকা আর ম্যাচ জিতলে এক্সট্রা ১০ থেকে ১৫ শতাংশ বেশি টাকা তারা পেয়ে থাকে।

কেন উইলিয়ামসন
rohoshyosondhane

এবার কথা বলব কেন উইলিয়ামসনের যিনি বর্তমানে নিউজিল্যান্ড টিমের ক্যাপ্টেন। কেনের বাৎসরিক ইনকাম হল সাড়ে ৩ কোটি টাকার মত যা মান্থলিতে কনভার্ট করলে হয় অ্যারাউন্ড ২৮ থেকে ২৯ লাখ টাকার কাছাকাছি। এদের জন্য কোন ম্যাচ ফি থাকে না কিন্তু ম্যাচ জিতলে ৫ থেকে ১০ শতাংশ এক্সট্রা টাকা তারা পেয়ে থাকে।

সরফরাজ
rohoshyosondhane

এরপর কথা বলব আমাদের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের ব্যাপারে। পাকিস্তানের প্লেয়ারদের জন্য কোন অ্যানুয়াল কন্ট্রাক হয় না। এদের জন্য শুধু মান্থলি কন্টাক হয় যা হলো শুধুমাত্র সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা। হ্যাঁ আপনি ঠিকই শুনেছেন মাত্র সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা আর এই কন্টাক শুধুমাত্র সরফরাজ অর্থাৎ তাদের অধিনায়কের সাথে। অন্যান্য প্লেয়ারদের কত টাকা ইনকাম হয় তা আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন। তবে এদের জন্য ম্যাচ ফি থাকে একটু বেশি, অ্যারাউন্ড ৫ থেকে ৭ লক্ষ টাকার কাছাকাছি অর্থাৎ যে যত বেশি ম্যাচ খেলবে সে ততো বেশি ইনকাম করতে পারবে। জেতার উপরেও কোনো এক্সট্রা পেমেন্ট প্লেয়ারদের দেওয়া হয় না।

মাশরাফি বিন মর্তুজা
rohoshyosondhane

এবার কথা বলব বাংলাদেশের ব্যাপারে, বাংলাদেশের ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মর্তুজা আর এনার বাৎসরিক ইনকাম হল প্রায় ৪ কোটি টাকা যা মান্থলিতে কনভার্ট করলে হয় অ্যারাউন্ড ৩৩ থেকে ৩৪ লাখ টাকার কাছাকাছি।

গুলবদিন নাইব
rohoshyosondhane

নেক্সট কথা বলবো আফগানিস্তানের ব্যাপারে। আফগানিস্তানের অধিনায়কের নাম হলো গুলবদিন নাইব আর এনার বাৎসরিক ইনকাম হলো ৭০ লক্ষ টাকা অর্থাৎ নাইবের মাসিক ইনকাম ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকার কাছাকাছি। আর এদের পার ম্যাচ ফি হল ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা। জেতার উপর এদের কোন ইন্সেন্টিভ দেওয়া হয় না।

বিরাট কোহলি
rohoshyosondhane

এবার কথা বলব ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির ব্যাপারে। বিরাট কোহলির বাৎসরিক ইনকাম প্রায় ৭ কোটি টাকা অর্থাৎ বিরাটের মাসিক ইনকাম ৫৭ লক্ষ টাকার কাছাকাছি। এছারা প্রত্যেক ম্যাচ পিছু তিনি পান সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা আর ম্যাচ জিতলে ১৫ থেকে ২০ শতাংশ এক্সট্রা ইনসেনটিভ দেওয়া হয় প্লেয়ারদের।

ধন্যবাদ ………

সুমন্ত ………

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here