কতটুকু সোনা ও রুপা দিয়ে তৈরি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ট্রফি? ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাস

0
288

আপনি বাংলাদেশী হন বা ভারতীয়, ক্রিকেটের প্রতি উন্মাদনা সকলের মধ্যেই রয়েছে। ভারত ইতিমধ্যে ক্রিকেট বিশ্বকাপের শিরোপা অর্জন করেছে দুই বার। ১৯৮৩ এবং ২০১১। বাংলাদেশের এখনো সেই সৌভাগ্য হয়নি তবে আসন্ন ২০১৯ বিশ্বকাপে, বাংলাদেশ তার প্রতিপক্ষকে কঠিন চ্যালেঞ্জ জানাতে চলেছে এটাই আশা করছে বিশেষজ্ঞমহল। আজকে আমাদের আলোচ্য বিষয় হল ক্রিকেট বিশ্বকাপ ট্রফিটিকে নিয়ে। ক্রিকেটের প্রতি ভালোবাসা থাকার দরুন বিশ্বকাপের খুটিনাটি বিষয়ের ব্যাপারে আমরা সকলেই জানি, কিন্তু আমরা হয়তো অনেকেই বিশ্বকাপের ট্রফিটির ব্যাপারে তেমন কিছু জানি না। যেমন বিশ্বকাপে কবে থেকে চালু হল এই স্থায়ী ট্রফি বা কতটুকু সোনা বা রূপা আছে এই ট্রফিতে। তবে চলুন তার আগে জেনে নেওয়া যাক, ক্রিকেট বিশ্বকাপের সূত্রপাত কিভাবে হল।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

১৯৭১ সালে মেলবোর্নে, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে আয়োজিত টেস্টটি, বৃষ্টির কারণে খেলার অনুপযুক্ত হয়ে পরে। নির্ধারিত পঞ্চম দিন, প্রথমবারের মতো একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার আয়োজন করা হয়। উত্তেজিত দর্শকদের সামলাতে কর্তৃপক্ষ চল্লিশ ওভারের খেলা আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেয়। তখন ৮-বলে এক ওভার গণ্য করা হতো। এ সফলতা ও জনপ্রিয়তাকে দেখে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ, ক্রিকেট বিশ্বকাপ আয়োজনের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

১৯৭৫ সালে প্রথমবারের মত, পুরুষদের ক্রিকেট বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতা ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হয়। প্রুডেন্সিয়াল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানির আর্থিক সহযোগিতায, প্রথম তিনটি প্রতিযোগিতা প্রুডেন্সিয়াল কাপ নামে পরিচিতি পায়। সেই সময় খেলাগুলো ৬০-ওভারব্যাপী চলত এবং দল গুলিকে লাল বল ও সাদা পোষাক পরে খেলতে হত।

এর পর ১৯৮৭ সালে, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ৬০-ওভারের পরিবর্তে ৫০-ওভারে আয়োজন করা হয়।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

পরবর্তী ১৯৯২ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে রঙিন পোশাক ও সাদা বলের ব্যবহার শুরু হয় এবং চালু হয় দিন/রাতের খেলা। আর এই ভাবেই আজও আয়োজিত হয়ে আসছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। এ তো গেল বিশ্বকাপের ইতিহাস এবার চলুন জেনে নেয়া যাক এই ট্রফিটির ব্যাপারে।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

১৯৭৫ সাল থেকে ক্রিকেট বিশ্বকাপ শুরু হলেও, তখন দেওয়া হতো না এখনকার মতো এই ট্রফি। বর্তমান ট্রফিটির আবির্ভাব ঘটে ১৯৯৯ সাল থেকে। এর আগে প্রতিটি জয়ী দেশকে দেওয়া হত, আলাদা আলাদা ডিজাইন ট্রফি। বর্তমান ওয়ার্ল্ড কাপ ট্রফিটির ডিজাইন নিয়ে শুরু থেকে আইসিসির মাথা ব্যাথা ছিল। তারা তৈরি করতে চাইছিল একটি ব্যতিক্রমধর্মী টফি, যা একই সাথে প্রকাশ করবে ক্রিকেটের আদল ও বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব। এই ট্রফিটির ডিজাইন করেছেন শিল্পী জো ক্লার্ক।

আরও পরতে ক্লিক করুন ঃ- ভারতের ৬ রহস্যময় গুপ্তধন যা আপনি খুঁজে পেতে পারেন

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

ট্রফির উপরিভাগে বসানো হয় একটি গোলাকার গ্লোব। যা একই সাথে বল ও পৃথিবীকে বোঝায়। এটি তৈরি করতে ব্যবহার করা হয়েছে সোনা এবং রুপো। রুপোর তিনটি স্টাম্প বেল, বসানো হয়েছে গোলাকার চাকতিতে। ৬০ সেন্টিমিটার উঁচু এবং ১১ কিলোগ্রাম ওজনের এই বিশ্বকাপ ট্রফির নিচে রয়েছে ICC-র logo এবং এই পর্যন্ত জয়ী দলগুলীর নাম খোদাই করা। এখানে আরো ১১ টি দেশের নাম লেখার জায়গা রয়েছে। ট্রফিটির উপরে যে সোনার বলটি আমরা দেখতে পাই তার ওজন প্রায় ৪ কেজি।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

আমরা অনেকে মনে করি ট্রফিটি সম্পূর্ণ সোনা এবং রুপো দিয়ে তৈরি, কিন্তু এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। আসলে ট্রফির রং এবং স্থায়িত্ব বাড়ানোর জন্য কয়েকবার ভেজানো হয়েছে সোনা এবং রুপোর জলে। এরপর সিনিয়ার ডিজাইনার ডেভিড, এর গ্লোবটির উপর খোদাই করে পৃথিবীর মানচিত্র, আর এভাবেই তৈরি করা হয়েছিল ক্রিকেট বিশ্বকাপের এই ট্রফিটি।

ধন্যবাদ ………

সুমন্ত ………

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here