নিখোঁজ হওয়া জাহাজ ৯০ বছর পর বারমুডা ট্রাঙ্গেল থেকে ফিরে এলো

1
183

বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের কথা যখন ওঠে, তখন আমাদের কল্পনায়, এর সাথে জুড়ে থাকা বিভিন্ন রহস্যময় ঘটনা গুলি ভেসে ওঠে। আজও বারমুডা ট্রাঙ্গেল, পৃথিবীর সবচেয়ে রহস্যময় জায়গা গুলোর মধ্যে একটি। বারমুড, আটলান্টিক মহাসাগরের একটি এমন জায়গা, যার রহস্য আজ পর্যন্ত কেউ উদঘাটন করতে পারেনি। এই অঞ্চলে অনেক বিমান এবং জাহাজ হারিয়ে গেছে, এবং তাদের হদিস আজও আমাদের বিজ্ঞান করে উঠতে পারিনি। কিন্তু সম্প্রতি একটি রহস্যময় ঘটনা, আমাদের সামনে উঠে এসেছে। অতীতে হারিয়ে যাওয়া একটি জাহাজ, প্রায় ৯০ বছর পর এই রহস্যময় জায়গা থেকে ফিরে এসেছে। আর এই ঘটনাটি বৈজ্ঞানিক মহলে একটি চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে। কেউ ভেবে উঠতে পারছে না, যে কিভাবে ৯০ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া একটি জাহাজ, পুনরায় ফিরে আসতে পারে। আজকের এই ভিডিওতে আমরা জানতে চলেছি এই রহস্যময় জাহাজটির ব্যাপারে।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল আটলান্টিক মহাসাগরের একটি এমন অঞ্চল, যাকে ডেভিল ট্রায়াঙ্গেল বা শয়তানের ত্রিভুজও বলা হয়। এই অঞ্চলটিতে যারা একবার ফেঁসে যায়, তারা কখনো আর এই জায়গা থেকে বেরিয়ে আসতে পারে না। আজ পর্যন্ত এই অঞ্চল থেকে প্রায় কয়েকশো বিমান এবং জাহাজ হারিয়ে যাবার ঘটনা নথিভুক্ত করা হয়েছে, আর এই সমস্ত হারিয়ে যাওয়া জাহাজ বা বিমান গুলিকেও বৈজ্ঞানিকরা আজ পর্যন্ত উদ্ধার করতে পারেনি। কিন্তু সম্প্রতি একটি ঘটনা সকলকে হতবাক করে দিয়েছে। এস এস পোটো প্রক্সি নামক একটি জাহাজ, প্রায় ৯০ বছর পর, এই রহস্যময় অঞ্চল থেকে ফিরে এসেছে। কিউবার তট রক্ষাকারী একটি দল ঘোষণা করেছে, যে তারা তাদের ব-দ্বীপ অঞ্চলের কাছাকাছি একটি পুরানো জাহাজ খুঁজে পেয়েছে, যার মধ্যে কেউ ছিল না। বলা  হচ্ছে এস এস পোটো প্রক্সি একটি বিশাল স্টিমার জাহাজ ছিল,এবং ১৯২৫ সালে বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল থেকে এটি রহস্যময় ভাবে হারিয়ে যায় আর সেই থেকে আজ পর্যন্ত এর কোন হদিস পাওয়া যায়নি। কিন্তু এই জাহাজটিকে খুঁজে পাওয়ার পর, বারমুডা ট্রায়াঙ্গল পুনরায় মানুষের কাছে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

কিউবার তট রক্ষাকারী দলটি এই জাহাজটিকে সর্বপ্রথম সাবানার দক্ষিণ অংশে, একটি দ্বীপের কাছে দেখতে পায়। তারা জাহাজটির চালক দলের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে, কিন্তু জাহাজটি থেকে কোন সিগন্যাল বা জবাব না আসায় তারা তিনটি নৌকা পাঠায় জাহাজটির ময়নাতদন্ত করার জন্য। যখন তারা এই জাহাজটির কাছে পৌঁছায় তখন তারা এই জাহাজটিকে দেখে একদম হতবাক হয়ে যায়। তারা দেখে যে এটি প্রায় ১০০ বছরের পুরনো একটি জাহাজ যার নাম এস এস পোটো প্রক্সি। এই জাহাজটি সেই সমস্ত জাহাজের তালিকায় নথিভূক্ত ছিল যে জাহাজগুলি বারমুডা ট্রাঙ্গেলের মধ্যে হারিয়ে গিয়েছিল। এই জাহাজের মধ্যে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

জাহাজটিতে পরীক্ষা চালানোর পর, তারা সেখান থেকে ক্যাপ্টেনের লগ বুক উদ্ধার করে, যার থেকে জানতে পারা যায় এটি ক্লিঞ্চফিল্ড নেভিগেশন কোম্পানির জাহাজ ছিল যা ২৯ নভেম্বর ১৯২৫ সালে সাউথ ক্যারোলিনা থেকে হাভানা কিউবার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিল। এই জাহাজে ২৩৪০ টন কয়লা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, ওই সময় এই জাহাজে ক্যাপ্টেন ডাবলু জে মেয়রের সাথে ৩২ জন ক্রু মেম্বারও ছিল। জাহাজটি তার যাত্রার দুদিন পর বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল থেকে রহস্যময়ভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়। কিউবার এক্সপার্ট, রুডলফো সালভাডোর ক্রুজ বলেন যে জাহাজে পাওয়া লগ বুক থেকে তারা এই জাহাজের ব্যাপারে অনেক কিছু জানতে পেরেছে কিন্তু ১লা ডিসেম্বর ১৯২৫এর পর থেকে এই লগ বুকে আর কিছু লেখা হয়নি। যখন এই জাহাজ নির্মাতা কম্পানির সাথে যোগাযোগ করা হয়, তখন সঠিক ভাবে জানতে পারা যায় না, যে আসলে ৯০ বছর আগে এই জাহাজটির সাথে কি ঘটেছিল। বর্তমানে, বৈজ্ঞানিকরা এই জাহাজের রহস্য উদঘাটন করার জন্য এই অঞ্চলটিতে পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ধন্যবাদ ……

সুমন্ত ………

rohoshyosondhane
rohoshyosondhane

হাই।। বন্ধুরা... আমি সুমন্ত, পৃথিবী কাঁপানো অসংখ্য রহস্যের উদঘাটন হয়নি আজও। তবে এগুলো নিয়ে আলোচনা-গবেষণা চলছে এখনো। রহস্যময় পৃথিবীতে প্রাকৃতিক বা অ-প্রাকৃতিক রহস্যের সীমা নেই। এরমধ্যে আবার কিছু স্থান বা বিষয় রয়েছে যা অতি-প্রাকৃতিক। এ কারণে এগুলো যুগ যুগ ধরে মানুষের কাছে হাজারো রহস্যে ঘেরা। আধুনিক বিজ্ঞানের উৎকর্ষতাও এ রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। এমনই হাজারো রহস্যের সন্ধান দিতে আমারদের এই ওয়েবসাইটি করা। আশা করি আপনারা সাথেই থাকবেন এবং উৎসাহ দিবেন। Subscribe করে আমাদের সাথে থাকতে ভুলবেন না।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here