হিমালয়তে রহস্যময় এলিয়েন

1
586

বিশ্বের অনেক বিজ্ঞানীরা মনে করেন আমাদের পৃথিবীর কিছু গুপ্ত জায়গায় পরগ্রহি জিব অর্থাৎ এলিয়েনদের যাতায়াত আছে । সেই সমস্ত জায়গা গুলির মধ্যে একটি হচ্ছে হিমালয়। ভারতীয় সেনা এবং ভারতীয় বি.এস.এফ বাহিনী ২০১০ সালে লাদাখের কাছাকাছি উরন্ত অজানা বস্তু বা UFO দেখার দাবি করে। সময়ের অন্তরালে এই ঘটনা চাপা পরে যায়। হিমালায় পর্বতে প্রথম UFO দেখা যাবার ঘটনা প্রকাশ্যে আসে ২০ অক্টোবর ২০১১ সালে ভোর ৪ টে বেজে ১৫ মিনিটে।

রাতে কর্মরত এক সিমান্ত রক্ষক অফিসার আকাশে উজ্জ্বল আলোক রশ্মি যুক্ত এক উরন্ত গোলাকার অজানা বস্তুকে সীমানার নিকটে অবতরন করতে দেখেন । তিনি লক্ষ্য করেন এই গোলাকার অজানা বস্তুর ভেতর থেকে বেড়িয়ে আসে কিছু অজানা জীব যাদের উচ্চতা প্রায় ৩ ফুট এবং তিনি আরও লক্ষ্য করেন তাদের প্রত্যেকের ৬ টি করে পা ছিল। এই পুরো ঘটনার বিবরণ তিনি তার উচ্চপদস্ত অফিসারকে জানান। কিন্তু কেউই তার কথায় বিশ্বাস করেনি। একই রকম ভাবে দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটে ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২ সালে। দুপুর ২ টো বেজে ১৮ মিনিট নাগাদ ভারত-চিন সিমারেখার থেকে ১ কিলোমিটার দুরে, মাটি থেকে প্রায় ৫০০ মিটার উপরে এক উজ্জ্বল গোলাকার উরন্ত বস্তু দেখা যায় এবং ৮ ভারতীয় সেনা, ১ টি কুকুর এবং ৩ টি পাহাড়ি ভেড়া ও একটি পাহাড়ি চিতা বাঘকে সেই উরন্ত বস্তুর মধ্যে তুলে নেয়।

কিছু দিন পরে তাদের মধ্যে ৬ জন সেনাকে গোয়ার সুমুদ্রতট থেকে উদ্ধার করা হয়, কিন্তু বাকি দুই ভারতীয় সেনাকে আজও খুঁজে পাওয়া যায়নি। যখন উদ্ধার হওয়া সেনাদের এই ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হয় তখন তারা কেউই এই ঘটনার কথা মনে করতে পারেনি কিন্তু এই ঘটনার সাক্ষী ছিল সেই এলাকার এক ভেড়া পরিচারক যিনি সেই দিন সিমারেখার নিকট ভেড়া চড়াচ্ছিলেন। সেই রকমই ২২ জুন ২০১৩ সালের সন্ধার ঠিক কিছু আগে এক অজানা উড়ন্ত বস্তুকে চিনের সেনা বেস ক্যাম্পের উপর উড়তে দেখা যায়, আর এই ঘটনাটি সেই এলাকার স্থানীয় লোকজন এবং চিনা সেনারাও দেখেছিল বলে দাবি করেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের কথা অনুযায়ী এই অজানা উড়ন্ত বস্তুটি এক বিশাল বায়ুযানের আকারের মত দেখতে ছিল এবং এর থেকে প্রচুর পরিমানে উজ্জ্বল আলোক রশ্মি বের হচ্ছিলো। কিছু লোকের দ্বারা নেওয়া কিছু ঝাপসা ছবির উপর পরীক্ষা চালিয়া ভারতীয় সেনা আধিকারিকরা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছান যে এই গোলাকার বস্তুটি মানুষের দ্বারা নির্মিত কোন বস্তু নয়। এই রকম একের পর এক ITTP দ্বারা ঘোষিত আলোক রশ্মি দেখা যাবার ঘটনায় “লে” (জায়গার নাম) তে উপস্থিত ভারতীয় সেনা বেসক্যাম্পে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়।

যে আলোক রশ্মি খালি চোখে দেখা যায় কিন্তু তা রাডারের মধ্যে ধরা পরেনা এর থেকে প্রমাণিত হয় এই আলোক রশ্মিতে আমাদের পরিচিত কোনও ধাতুর কণা মজুত ছিলনা। স্পেকট্রাম এণালাইজারও এই আলোক রশ্মি থেকে নির্গত তোরঙ্গকে ধরতে পারছিলনা । সেই আলোক রশ্মিকে সনাক্ত করার জন্য তার দিকে ড্রন ও পাঠানো হয় কিন্তু ড্রন তার উচ্চতম সীমাতে পৌছেও এই আলোক রশ্মির কোনও সঠিক সন্ধান করতে পারেনি । ভারতীয় বায়ুসেনা প্রধান এয়াড় চিফ মার্শাল পি. বি. নাইক বলেছিলেন “ আমরা এই ঘটনাকে অদেখা করে দিতে পারিনা, আমাদের সন্ধান করতেই হবে আসলে এই বস্তুটি কী?”

ভারত ও পৃথিবীর বিভিণ্ণ স্থানে এই রকম অনেক অজানা রহস্য লুকিয়ে আছে যে রহস্যের সমাধান আজও হয়নি।

আপনাদের কি ধারণা এলিয়েন সম্বন্ধে তা নীচের কমেন্টবক্সে লিখে জানান।

ধন্যবাদ ।

সুমন্ত…………

rohoshyosondhane

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here